ঢাকা ০২:২৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঈদের ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:২৮:৩২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩০ মার্চ ২০২৪
  • / ২৪ বার পড়া হয়েছে

ঈদের ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি

বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যে ঈদের ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু করে দিয়েছে। আজকে যারা অগ্রিম টিকেট কিনবেন তারা আগামী ৯ ই এপ্রিল এই টিকেটে ট্রেনে ভ্রমণ করতে পারবেন। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের টিকেট বিক্রির আজকে সপ্তম দিন।

আজ শনিবার সকাল ৮ টা হতে টিকেট বিক্রি শুরু হয়েছে। এটি ৯ এপ্রিলের আন্তঃনগর ট্রেনের টিকেট ছিল। আজকে সারাদিনে পশ্চিমাঞ্চলের ট্রেনের টিকেট এবং পূর্বাঞ্চলের ট্রেনের টিকিট বিক্রি হয়েছে। আজকের এই ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রির মধ্য দিয়ে এবারের ট্রেনের টিকেট বিক্রি শেষ হয়েছে।

ঈদ শেষে বাড়ি থেকে ফেরার জন্য ফিরতি ট্রেনের টিকেট আগামী ৩ এপ্রিল থেকে বিক্রি শুরু হবে সেই টিকেট বিক্রি চলবে আগামী ৯ এপ্রিল পর্যন্ত। যাত্রীরা এই ফিরতি ট্রেনের টিকেট অনলাইনেও ক্রয় করতে পারবেন।

সর্বসাধারণের কথা চিন্তা করে এবার সকল ধরনের ট্রেনের টিকেট অনলাইনে বিক্রির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। একজন গ্রাহক সর্বোচ্চ ৪ টি টিকেট ক্রয় করতে পারবেন তবে যাওয়া এবং আসার জন্য ১ টি করে টিকিটই ক্রয় করতে পারবেন। একবার ঈদের অগ্রিম টিকেট ক্রয় করে ফেললে সেটি ফেরত দিয়ে টাকা ফেরত পাওয়ার কোন সুযোগ নেই। আন্তঃনগর ট্রেনের মোট টিকেটের প্রায় ২৫ ভাগ স্ট্যান্ডিং টিকিট হিসেবে কাউন্টার হতে বিক্রি করা হবে।

ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি

গত ২৪ শে মার্চ প্রথম ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু করে বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। টিকেট বিক্রির শেষ ভাগে আন্তঃনগর ট্রেনের প্রায় ৩৩ হাজার ৫০০ টি টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে।

এবার ঈদকে কেন্দ্র করে নাশকতা প্রতিরোধে সকল রকমের প্রস্তুতি নিচ্ছে প্রশাসন ও রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। যাত্রীদের নিরাপদে বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থাও গ্রহণ করা হয়েছে। তাছাড়া শিশু ও মহিলা যাত্রীরা যাতে নির্বিঘ্নে রেলে উঠতে এবং নামতে পারে তার জন্য জয়দেবপুর, কমলাপুরসহ বিভিন্ন রেলওয়ে স্টেশনে বাশেঁর ব্যারিকেড তৈরি করা হয়েছে। আপনারা যারা ট্রেনে করে ঈদে বাড়িতে যাবেন তারা ওঠা এবং নামার সময় যথেষ্ট সতর্কতা অবলম্বন করবেন বিশেষ করে যাদের সাথে বৃদ্ধ মহিলা কিংবা শিশু রয়েছে। মনে রাখবেন সময়ের চেয়ে জীবনের মূল্য অনেক বেশি।

যারা ঈদের অগ্রিম টিকেট কেটেছেন বাড়ি যাওয়ার জন্য তারা অবশ্যই ৩ এপ্রিল থেকে ফিরতি ট্রেনের টিকেট বুকিং করে রাখবেন। যেহেতু পুরো বুকিং প্রক্রিয়াটি অনলাইনে সম্পন্ন হয় তাই আপনি বাসায় বসেই টিকেট ক্রয় করতে পারবেন। তবে আপনার আপনার প্রয়োজনের অতিরিক্ত টিকেট কিনবেন না। অন্যকে ভ্রমণের সুযোগ দিন। আপনার ঈদ যাত্রা শুভ হক।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ঈদের ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু

আপডেট সময় : ১০:২৮:৩২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩০ মার্চ ২০২৪

বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যে ঈদের ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু করে দিয়েছে। আজকে যারা অগ্রিম টিকেট কিনবেন তারা আগামী ৯ ই এপ্রিল এই টিকেটে ট্রেনে ভ্রমণ করতে পারবেন। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের টিকেট বিক্রির আজকে সপ্তম দিন।

আজ শনিবার সকাল ৮ টা হতে টিকেট বিক্রি শুরু হয়েছে। এটি ৯ এপ্রিলের আন্তঃনগর ট্রেনের টিকেট ছিল। আজকে সারাদিনে পশ্চিমাঞ্চলের ট্রেনের টিকেট এবং পূর্বাঞ্চলের ট্রেনের টিকিট বিক্রি হয়েছে। আজকের এই ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রির মধ্য দিয়ে এবারের ট্রেনের টিকেট বিক্রি শেষ হয়েছে।

ঈদ শেষে বাড়ি থেকে ফেরার জন্য ফিরতি ট্রেনের টিকেট আগামী ৩ এপ্রিল থেকে বিক্রি শুরু হবে সেই টিকেট বিক্রি চলবে আগামী ৯ এপ্রিল পর্যন্ত। যাত্রীরা এই ফিরতি ট্রেনের টিকেট অনলাইনেও ক্রয় করতে পারবেন।

সর্বসাধারণের কথা চিন্তা করে এবার সকল ধরনের ট্রেনের টিকেট অনলাইনে বিক্রির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। একজন গ্রাহক সর্বোচ্চ ৪ টি টিকেট ক্রয় করতে পারবেন তবে যাওয়া এবং আসার জন্য ১ টি করে টিকিটই ক্রয় করতে পারবেন। একবার ঈদের অগ্রিম টিকেট ক্রয় করে ফেললে সেটি ফেরত দিয়ে টাকা ফেরত পাওয়ার কোন সুযোগ নেই। আন্তঃনগর ট্রেনের মোট টিকেটের প্রায় ২৫ ভাগ স্ট্যান্ডিং টিকিট হিসেবে কাউন্টার হতে বিক্রি করা হবে।

ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি

গত ২৪ শে মার্চ প্রথম ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু করে বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। টিকেট বিক্রির শেষ ভাগে আন্তঃনগর ট্রেনের প্রায় ৩৩ হাজার ৫০০ টি টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে।

এবার ঈদকে কেন্দ্র করে নাশকতা প্রতিরোধে সকল রকমের প্রস্তুতি নিচ্ছে প্রশাসন ও রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। যাত্রীদের নিরাপদে বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থাও গ্রহণ করা হয়েছে। তাছাড়া শিশু ও মহিলা যাত্রীরা যাতে নির্বিঘ্নে রেলে উঠতে এবং নামতে পারে তার জন্য জয়দেবপুর, কমলাপুরসহ বিভিন্ন রেলওয়ে স্টেশনে বাশেঁর ব্যারিকেড তৈরি করা হয়েছে। আপনারা যারা ট্রেনে করে ঈদে বাড়িতে যাবেন তারা ওঠা এবং নামার সময় যথেষ্ট সতর্কতা অবলম্বন করবেন বিশেষ করে যাদের সাথে বৃদ্ধ মহিলা কিংবা শিশু রয়েছে। মনে রাখবেন সময়ের চেয়ে জীবনের মূল্য অনেক বেশি।

যারা ঈদের অগ্রিম টিকেট কেটেছেন বাড়ি যাওয়ার জন্য তারা অবশ্যই ৩ এপ্রিল থেকে ফিরতি ট্রেনের টিকেট বুকিং করে রাখবেন। যেহেতু পুরো বুকিং প্রক্রিয়াটি অনলাইনে সম্পন্ন হয় তাই আপনি বাসায় বসেই টিকেট ক্রয় করতে পারবেন। তবে আপনার আপনার প্রয়োজনের অতিরিক্ত টিকেট কিনবেন না। অন্যকে ভ্রমণের সুযোগ দিন। আপনার ঈদ যাত্রা শুভ হক।