ঢাকা ০৪:৫৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বান্দরবানের পর থানচিতে দুই ব্যাংকে ভরদুপুরে ডাকাতি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:১০:৫৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ এপ্রিল ২০২৪
  • / ২৭ বার পড়া হয়েছে

বান্দরবানের পর থানচিতে দুই ব্যাংকে ভরদুপুরে ডাকাতি!

বান্দরবানের সোনালী ব্যাংকে ডাকাতি হামলা এবং লুটপাটের রেশ না কাটতেই আজ বুধবার দুপুর ১২ টায় থানচি উপজেলায় ভর দুপুরে ডাকাতি চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা। এ সময় তারা ব্যাংক থেকে টাকা লুটপাট করেছে। ডাকাতি হওয়া কৃষি ব্যাংকের ম্যানেজার সাংবাদিকদের জানান, আজ দুপুর ১২ টার দিকে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে দুই গাড়ি লোক আমাদের ব্যাংক ও পাশে থাকা সোনালী ব্যাংকে ডাকাতি হামলা চালায়।

ব্যাংকে প্রবেশ করে তারা চোখের পলকে সবাইকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ফেলে। তারপর সবাইকে বাইরের একটি কক্ষে নিয়ে আটকে দিল। থানচি কৃষি ব্যাংকের ম্যানেজার জানান, প্রাথমিকভাবে আমরা ধারণা করছি প্রায় আড়াই লাখ টাকা লুট হয়েছে। ঠিক একই সময়ে পাশের সোনালী ব্যাংকেও হামলা হয় বলে কৃষি ব্যাংকের ম্যানেজার জানান। তবে এই ব্যাপারে সোনালী ব্যাংকের কারো বক্তব্য এখন পর্যন্ত আমরা জানতে পারিনি।

এদিকে বান্দরবানের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল করিম জানান, আমরা কিছুক্ষণ আগেই থানচিতে ব্যাংক হামলার খবর পেয়েছি। আমাদের ধারণা গতকাল বান্দরবনে সোনালী ব্যাংকে যারা হামলা করেছিল এটি তাদেরই কাজ। তবে ঘটনা তদন্তের এখনো কোন অগ্রগতি হয়নি।

বান্দরবানের পর থানচিতে দুই ব্যাংকে ভরদুপুরে ডাকাতি

গত ২ এপ্রিল মঙ্গলবার রাত নয়টার দিকে বান্দরবনের রুমা উপজেলার সোনালী ব্যাংকে হামলা চালায় ডাকাতরা। ডাকাতদের সংখ্যা প্রায় শতাধিক এবং তারা সশস্ত্র ছিল বলে জানা যায়। ডাকাতের সময় তারা সোনালী ব্যাংকের কর্মকর্তা এবং সিকিউরিটি গার্ড সহ অন্তত ২০ জনের উপর শারীরিক নির্যাতন করে। শাখাটির ম্যানেজার নিজাম উদ্দিনকে তারা অপহরণ করে সাথে নিয়ে যায়।

গতকালের ঠিক এই ঘটনার একদিন না পেরোতেই ভরদুপুরে থানচিতে আবারও ডাকাতি হামলায় দেশের জনগণ বেশ স্তম্ভিত। এ নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যেও বেশ আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। ঘটনার পর থেকে স্থানীয় বাজার প্রায় লোক শূন্য। ব্যাংকের আশেপাশে সাধারণ মানুষ এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের দেখা যাচ্ছে। তারা ঘটনাটি তদন্ত করছিলেন।

এদিকে থানচিতে বুধবার সাপ্তাহিক বাজার থাকায় স্বাভাবিকভাবেই ব্যাংকের লেনদেন বেশি ছিল। বাজারের এক ব্যবসায়ী বলেন সশস্ত্র ডাকাত দলের সাথে বেশ কিছু নারী সদস্যও ছিল। স্থানীয়দের ধারণা তারা কুকি-চীন পার্টির সদস্য হতে পারে। ঠিক যেন সিনেমার দৃশ্যের মতো চোখের সামনে সবকিছু ঘটছিলো। আসামিদের অতি দ্রুত গ্রেপ্তার করে যথাযথ শাস্তির ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশ প্রধান।

Also: জল্লাদ শাহজাহান বিয়ে করে সর্বশান্ত

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

বান্দরবানের পর থানচিতে দুই ব্যাংকে ভরদুপুরে ডাকাতি

আপডেট সময় : ০২:১০:৫৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ এপ্রিল ২০২৪

বান্দরবানের সোনালী ব্যাংকে ডাকাতি হামলা এবং লুটপাটের রেশ না কাটতেই আজ বুধবার দুপুর ১২ টায় থানচি উপজেলায় ভর দুপুরে ডাকাতি চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা। এ সময় তারা ব্যাংক থেকে টাকা লুটপাট করেছে। ডাকাতি হওয়া কৃষি ব্যাংকের ম্যানেজার সাংবাদিকদের জানান, আজ দুপুর ১২ টার দিকে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে দুই গাড়ি লোক আমাদের ব্যাংক ও পাশে থাকা সোনালী ব্যাংকে ডাকাতি হামলা চালায়।

ব্যাংকে প্রবেশ করে তারা চোখের পলকে সবাইকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ফেলে। তারপর সবাইকে বাইরের একটি কক্ষে নিয়ে আটকে দিল। থানচি কৃষি ব্যাংকের ম্যানেজার জানান, প্রাথমিকভাবে আমরা ধারণা করছি প্রায় আড়াই লাখ টাকা লুট হয়েছে। ঠিক একই সময়ে পাশের সোনালী ব্যাংকেও হামলা হয় বলে কৃষি ব্যাংকের ম্যানেজার জানান। তবে এই ব্যাপারে সোনালী ব্যাংকের কারো বক্তব্য এখন পর্যন্ত আমরা জানতে পারিনি।

এদিকে বান্দরবানের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল করিম জানান, আমরা কিছুক্ষণ আগেই থানচিতে ব্যাংক হামলার খবর পেয়েছি। আমাদের ধারণা গতকাল বান্দরবনে সোনালী ব্যাংকে যারা হামলা করেছিল এটি তাদেরই কাজ। তবে ঘটনা তদন্তের এখনো কোন অগ্রগতি হয়নি।

বান্দরবানের পর থানচিতে দুই ব্যাংকে ভরদুপুরে ডাকাতি

গত ২ এপ্রিল মঙ্গলবার রাত নয়টার দিকে বান্দরবনের রুমা উপজেলার সোনালী ব্যাংকে হামলা চালায় ডাকাতরা। ডাকাতদের সংখ্যা প্রায় শতাধিক এবং তারা সশস্ত্র ছিল বলে জানা যায়। ডাকাতের সময় তারা সোনালী ব্যাংকের কর্মকর্তা এবং সিকিউরিটি গার্ড সহ অন্তত ২০ জনের উপর শারীরিক নির্যাতন করে। শাখাটির ম্যানেজার নিজাম উদ্দিনকে তারা অপহরণ করে সাথে নিয়ে যায়।

গতকালের ঠিক এই ঘটনার একদিন না পেরোতেই ভরদুপুরে থানচিতে আবারও ডাকাতি হামলায় দেশের জনগণ বেশ স্তম্ভিত। এ নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যেও বেশ আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। ঘটনার পর থেকে স্থানীয় বাজার প্রায় লোক শূন্য। ব্যাংকের আশেপাশে সাধারণ মানুষ এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের দেখা যাচ্ছে। তারা ঘটনাটি তদন্ত করছিলেন।

এদিকে থানচিতে বুধবার সাপ্তাহিক বাজার থাকায় স্বাভাবিকভাবেই ব্যাংকের লেনদেন বেশি ছিল। বাজারের এক ব্যবসায়ী বলেন সশস্ত্র ডাকাত দলের সাথে বেশ কিছু নারী সদস্যও ছিল। স্থানীয়দের ধারণা তারা কুকি-চীন পার্টির সদস্য হতে পারে। ঠিক যেন সিনেমার দৃশ্যের মতো চোখের সামনে সবকিছু ঘটছিলো। আসামিদের অতি দ্রুত গ্রেপ্তার করে যথাযথ শাস্তির ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশ প্রধান।

Also: জল্লাদ শাহজাহান বিয়ে করে সর্বশান্ত