ঢাকা ১০:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সোমালিয়া জলদস্যুদের থেকে জাহাজ উদ্ধার করল ভারতীয় নৌবাহিনী!

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:০১:৫৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৭ মার্চ ২০২৪
  • / ২৯ বার পড়া হয়েছে

সোমালিয়া জলদস্যুদের থেকে জাহাজ উদ্ধার করল ভারতীয় নৌবাহিনী!

১৭ জন নাবিক সহ একটি বাণিজ্যিক জাহাজ উদ্ধার করেছে ভারতীয় নৌ-বাহিনী। জাহাজটিতে থাকা ৩৫ জন সোমালিয়া জলদস্যুর সবাই আত্মসমর্পণ করেছে। কোনরকম হতা হতের ঘটনা ছাড়াই তারা এই জাহাজটিকে পুনরুদ্ধার করতে সক্ষম হন। ধারণা করা হচ্ছে, বাংলাদেশী জাহাজ এমভি আব্দুল্লাহকে দখল করতে এই জাহাজটি ব্যবহার করা হয়েছে।

ভারতীয় নৌবাহিনী টুইটার/এক্সের এক পোষ্টের মাধ্যমে এই তথ্য জানায়। বলা হয়, তারা ভারতীয় উপকূল থেকে এমভি রুয়েল নামক একটি মাল্টার পতাকাবাহী জাহাজ উদ্ধার করেছে। এই জাহাজটি নাকি গত ডিসেম্বরে সোমালিয়া জলদস্যুদের দ্বারা অপহরণ হয়েছিল।

ভারতীয় নৌবাহিনী এখন পর্যন্ত তল্লাশি চালিয়ে দেখছে যে, জাহাজটিতে কোন মাদক, অবৈধ অস্ত্র বা গোলাবারুদ রয়েছে কিনা। ভারতীয় নৌবাহিনীর একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন ” তারা এই অঞ্চলে সামুদ্রিক ও নাবিকদের নিরাপত্তার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ”।

গত ১২ মার্চ মঙ্গলবার বাংলাদেশী জাহাজ এমভি আব্দুল্লাহকে দখল করে নেয় সোমালিয়া জলদস্যুরা। ভারতীয় মহাসাগর থেকে দখল করে তারা জাহাজটিকে সোমালিয়া উপকূলের দিকে নিয়ে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রেখেছে।

সোমালিয়া জলদস্যুদের থেকে জাহাজ উদ্ধার করল ভারতীয় নৌবাহিনী

এ বিষয়ে ইউরোপিয়ান নৌবাহিনী এক বিবৃতিতে বলেছেন, এমভি রুয়েনকে সোমালিয়া জলদস্যুরা ভারত মহাসাগরে ঘাটি হিসেবে ব্যবহার করত। আর এটির মাধ্যমেই বাংলাদেশী জাহাজ ছিনতাই করতে সক্ষম হয়।

পৃথিবীর সবচাইতে বেপরোয়া সোমালিয়া জলদস্যুরা এডেন উপকূল ও ভারত মহাসাগরে আন্তর্জাতিক নৌবাহিনী টহল দেয়ার সময়ও জাহাজ ছিনতাই করার দুঃসাহস দেখিয়েছে। তবে গত ৭/৮ বছরের ইতিহাসে সোমালি জলদস্যদের বিরুদ্ধে এটাই সবচাইতে বড় সফল অভিযান। তবে বাংলাদেশী জাহাজ “এমভি আব্দুল্লাহ” উদ্ধার করার খবরটি সত্য নয়। এটি উদ্ধার করতে ভারতীয় নৌবাহিনী এখন পর্যন্ত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

ভারতের অন্যতম সংবাদ মাধ্যম দা নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসও এই ব্যাপারে একটি খবর প্রকাশ করেছে যেটিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশী জাহাজ এমভি আব্দুল্লার সহায়তার অনুরোধে সাড়া দিয়েছে ভারতীয় নৌবাহিনীর যুদ্ধ জাহাজ। সোমালিয়া জলদস্যুদের হাত থেকে বাংলাদেশী জাহাজ উদ্ধারের মিশনে নিয়োজিত আছে একটি ভারতীয় নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজ ও একটি এলআরএমপি বিমান।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

সোমালিয়া জলদস্যুদের থেকে জাহাজ উদ্ধার করল ভারতীয় নৌবাহিনী!

আপডেট সময় : ০৪:০১:৫৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৭ মার্চ ২০২৪

১৭ জন নাবিক সহ একটি বাণিজ্যিক জাহাজ উদ্ধার করেছে ভারতীয় নৌ-বাহিনী। জাহাজটিতে থাকা ৩৫ জন সোমালিয়া জলদস্যুর সবাই আত্মসমর্পণ করেছে। কোনরকম হতা হতের ঘটনা ছাড়াই তারা এই জাহাজটিকে পুনরুদ্ধার করতে সক্ষম হন। ধারণা করা হচ্ছে, বাংলাদেশী জাহাজ এমভি আব্দুল্লাহকে দখল করতে এই জাহাজটি ব্যবহার করা হয়েছে।

ভারতীয় নৌবাহিনী টুইটার/এক্সের এক পোষ্টের মাধ্যমে এই তথ্য জানায়। বলা হয়, তারা ভারতীয় উপকূল থেকে এমভি রুয়েল নামক একটি মাল্টার পতাকাবাহী জাহাজ উদ্ধার করেছে। এই জাহাজটি নাকি গত ডিসেম্বরে সোমালিয়া জলদস্যুদের দ্বারা অপহরণ হয়েছিল।

ভারতীয় নৌবাহিনী এখন পর্যন্ত তল্লাশি চালিয়ে দেখছে যে, জাহাজটিতে কোন মাদক, অবৈধ অস্ত্র বা গোলাবারুদ রয়েছে কিনা। ভারতীয় নৌবাহিনীর একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন ” তারা এই অঞ্চলে সামুদ্রিক ও নাবিকদের নিরাপত্তার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ”।

গত ১২ মার্চ মঙ্গলবার বাংলাদেশী জাহাজ এমভি আব্দুল্লাহকে দখল করে নেয় সোমালিয়া জলদস্যুরা। ভারতীয় মহাসাগর থেকে দখল করে তারা জাহাজটিকে সোমালিয়া উপকূলের দিকে নিয়ে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রেখেছে।

সোমালিয়া জলদস্যুদের থেকে জাহাজ উদ্ধার করল ভারতীয় নৌবাহিনী

এ বিষয়ে ইউরোপিয়ান নৌবাহিনী এক বিবৃতিতে বলেছেন, এমভি রুয়েনকে সোমালিয়া জলদস্যুরা ভারত মহাসাগরে ঘাটি হিসেবে ব্যবহার করত। আর এটির মাধ্যমেই বাংলাদেশী জাহাজ ছিনতাই করতে সক্ষম হয়।

পৃথিবীর সবচাইতে বেপরোয়া সোমালিয়া জলদস্যুরা এডেন উপকূল ও ভারত মহাসাগরে আন্তর্জাতিক নৌবাহিনী টহল দেয়ার সময়ও জাহাজ ছিনতাই করার দুঃসাহস দেখিয়েছে। তবে গত ৭/৮ বছরের ইতিহাসে সোমালি জলদস্যদের বিরুদ্ধে এটাই সবচাইতে বড় সফল অভিযান। তবে বাংলাদেশী জাহাজ “এমভি আব্দুল্লাহ” উদ্ধার করার খবরটি সত্য নয়। এটি উদ্ধার করতে ভারতীয় নৌবাহিনী এখন পর্যন্ত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

ভারতের অন্যতম সংবাদ মাধ্যম দা নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসও এই ব্যাপারে একটি খবর প্রকাশ করেছে যেটিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশী জাহাজ এমভি আব্দুল্লার সহায়তার অনুরোধে সাড়া দিয়েছে ভারতীয় নৌবাহিনীর যুদ্ধ জাহাজ। সোমালিয়া জলদস্যুদের হাত থেকে বাংলাদেশী জাহাজ উদ্ধারের মিশনে নিয়োজিত আছে একটি ভারতীয় নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজ ও একটি এলআরএমপি বিমান।