ঢাকা ১১:৫৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

১৮তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার প্রশ্নপত্র-২০২৪

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:৫০:৩৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৩ মার্চ ২০২৪
  • / ২৩ বার পড়া হয়েছে

১৮তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার প্রশ্নপত্র-২০২৪

আগামী ১৫ মার্চ ২০২৪ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ১৮ তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার প্রথম পর্ব। এই পরীক্ষাটি হবে ১০০ নম্বরের বহুনির্বাচনি বা এমসিকিউ পদ্ধতিতে।

সকালে স্কুল ও স্কুল-২ পর্যায়ের পরীক্ষা এবং বিকেলে কলেজ পর্যায়ের পরীক্ষা সম্পন্ন হবে।
অন্যান্য বছরের তুলনায় এই বছর শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী সংখ্যা অনেক বেশি। তাই প্রতিযোগিতাও বেশি। এবার ১৮ তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় প্রায় ১৯ লাখ পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবে। তবে চূড়ান্ত পরীক্ষায় অনেক পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ নাও করতে পারে।

পরীক্ষার্থীর সংখ্যা দেখে অনেকেই ভয় পেয়ে যান। এত এত প্রতিযোগীর মধ্য থেকে কি আমি টিকতে পারবো? আসলে প্রতিযোগীদের সংখ্যা অনেক বেশি হলেও আপনার সর্বোচ্চ প্রস্তুতি আপনাকে সাফল্য এনে দিতে পারে।

তবে আরেকটা স্বস্তির খবর হচ্ছে এই প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় প্রতিযোগিতা হয় না বললেই চলে। মূল প্রতিযোগিতা হয় নিবন্ধন সনদ পাওয়ার পর স্কুল কিংবা কলেজে যোগদানের সময়। তখন লিখিত এবং ভাইভা পরীক্ষার নম্বরের উপর ভিত্তি করে ফলাফল ঘোষণা করা হয়। প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় শুধুমাত্র ৪০ নম্বর বা তার বেশি পেয়ে পাশ করলেই পরবর্তী লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন। তাই ঘাবড়ে না গিয়ে মাথা ঠান্ডা রেখে এই পরীক্ষাটি দেওয়া উচিত এবং সর্বোচ্চ নম্বর পাওয়ার চেষ্টা করা উচিত।

যারা প্রথম ধাপের এই পরীক্ষাটিতে টিকে যাবেন তাদেরকে পরবর্তী আরো দুইটি ধাপে পরীক্ষা দিতে হবে। নিম্নে ধাপগুলো বর্ণনা করা হলো যাতে আপনারা পুরো প্রক্রিয়াটি আরো ভালোভাবে বুঝতে পারেন।

প্রথম ধাপ: প্রিলিমিনারি পরীক্ষা

এনটিআরসিএ কর্তৃক আয়োজিত প্রিলিমিনারি পরীক্ষাতে ১০০ নম্বরের হয়ে থাকে যেটি আগামী ১৫ মার্চ ২০২৪ তারিখ অনুষ্ঠিত হবে। ১০০ নম্বরের মধ্যেও ৪০ নম্বর পেলেই সাধারণত পাশ ধরা হয়। তবে এই পরীক্ষার নম্বর মূল ফলাফলের সাথে যোগ করা হয় না।

দ্বিতীয় ধাপ: লিখিত পরীক্ষা

প্রথম ধাপ অর্থাৎ প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হয়। এই পরীক্ষাটিও ১০০ নম্বরের তবে সময় ৩ ঘন্টা। যে বিষয়ে আপনি শিক্ষকতা করতে চান সেই বিষয়টি সহ অন্যান্য সাধারণ বিষয় গুলোর উপর এই পরীক্ষাটি হয়ে থাকে। এই পরীক্ষার নম্বরের উপর মূলত মূল ফলাফল নির্ভর করে। তাই এই ধাপটি সবচাইতে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

তৃতীয় ধাপ: মৌখিক পরীক্ষা

লিখিত পরীক্ষায় নম্বরের ভিত্তিতে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মৌখিক বা ভাইভা পরীক্ষার জন্য ডাকা হয়। এই পরীক্ষায় চূড়ান্তভাবে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের ফলাফল প্রকাশ এবং এনটিআরসিএ এর পক্ষ থেকে নিবন্ধন সনদ দেওয়া হয়।

১৮তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার সময়সূচি

এই সনদপত্র এবং নম্বরের উপর ভিত্তি করে বেসরকারি বা এমপিও ভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে আবেদন করতে হয়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো মূলত মেধা বা নম্বরের ভিত্তিতে শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে থাকেন।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

১৮তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার প্রশ্নপত্র-২০২৪

আপডেট সময় : ১১:৫০:৩৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৩ মার্চ ২০২৪

আগামী ১৫ মার্চ ২০২৪ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ১৮ তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার প্রথম পর্ব। এই পরীক্ষাটি হবে ১০০ নম্বরের বহুনির্বাচনি বা এমসিকিউ পদ্ধতিতে।

সকালে স্কুল ও স্কুল-২ পর্যায়ের পরীক্ষা এবং বিকেলে কলেজ পর্যায়ের পরীক্ষা সম্পন্ন হবে।
অন্যান্য বছরের তুলনায় এই বছর শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী সংখ্যা অনেক বেশি। তাই প্রতিযোগিতাও বেশি। এবার ১৮ তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় প্রায় ১৯ লাখ পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবে। তবে চূড়ান্ত পরীক্ষায় অনেক পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ নাও করতে পারে।

পরীক্ষার্থীর সংখ্যা দেখে অনেকেই ভয় পেয়ে যান। এত এত প্রতিযোগীর মধ্য থেকে কি আমি টিকতে পারবো? আসলে প্রতিযোগীদের সংখ্যা অনেক বেশি হলেও আপনার সর্বোচ্চ প্রস্তুতি আপনাকে সাফল্য এনে দিতে পারে।

তবে আরেকটা স্বস্তির খবর হচ্ছে এই প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় প্রতিযোগিতা হয় না বললেই চলে। মূল প্রতিযোগিতা হয় নিবন্ধন সনদ পাওয়ার পর স্কুল কিংবা কলেজে যোগদানের সময়। তখন লিখিত এবং ভাইভা পরীক্ষার নম্বরের উপর ভিত্তি করে ফলাফল ঘোষণা করা হয়। প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় শুধুমাত্র ৪০ নম্বর বা তার বেশি পেয়ে পাশ করলেই পরবর্তী লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন। তাই ঘাবড়ে না গিয়ে মাথা ঠান্ডা রেখে এই পরীক্ষাটি দেওয়া উচিত এবং সর্বোচ্চ নম্বর পাওয়ার চেষ্টা করা উচিত।

যারা প্রথম ধাপের এই পরীক্ষাটিতে টিকে যাবেন তাদেরকে পরবর্তী আরো দুইটি ধাপে পরীক্ষা দিতে হবে। নিম্নে ধাপগুলো বর্ণনা করা হলো যাতে আপনারা পুরো প্রক্রিয়াটি আরো ভালোভাবে বুঝতে পারেন।

প্রথম ধাপ: প্রিলিমিনারি পরীক্ষা

এনটিআরসিএ কর্তৃক আয়োজিত প্রিলিমিনারি পরীক্ষাতে ১০০ নম্বরের হয়ে থাকে যেটি আগামী ১৫ মার্চ ২০২৪ তারিখ অনুষ্ঠিত হবে। ১০০ নম্বরের মধ্যেও ৪০ নম্বর পেলেই সাধারণত পাশ ধরা হয়। তবে এই পরীক্ষার নম্বর মূল ফলাফলের সাথে যোগ করা হয় না।

দ্বিতীয় ধাপ: লিখিত পরীক্ষা

প্রথম ধাপ অর্থাৎ প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হয়। এই পরীক্ষাটিও ১০০ নম্বরের তবে সময় ৩ ঘন্টা। যে বিষয়ে আপনি শিক্ষকতা করতে চান সেই বিষয়টি সহ অন্যান্য সাধারণ বিষয় গুলোর উপর এই পরীক্ষাটি হয়ে থাকে। এই পরীক্ষার নম্বরের উপর মূলত মূল ফলাফল নির্ভর করে। তাই এই ধাপটি সবচাইতে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

তৃতীয় ধাপ: মৌখিক পরীক্ষা

লিখিত পরীক্ষায় নম্বরের ভিত্তিতে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মৌখিক বা ভাইভা পরীক্ষার জন্য ডাকা হয়। এই পরীক্ষায় চূড়ান্তভাবে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের ফলাফল প্রকাশ এবং এনটিআরসিএ এর পক্ষ থেকে নিবন্ধন সনদ দেওয়া হয়।

১৮তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার সময়সূচি

এই সনদপত্র এবং নম্বরের উপর ভিত্তি করে বেসরকারি বা এমপিও ভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে আবেদন করতে হয়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো মূলত মেধা বা নম্বরের ভিত্তিতে শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে থাকেন।